বাংলা ভাষায় টার্ম ইন্সুরেন্স
  • উচ্চ জীবন বীমা কভার
  • কম প্রিমিয়াম পরিকল্পনা
  • ট্যাক্স বেনিফিট
PX step

প্রিমিয়াম তুলনা করুন

1

2

ফোন নং.
নাম
জন্ম তারিখ

1

2

আয়
শহর

অগ্রসর হওয়ার মাধ্যমে আপনি আমাদের শর্তাবলী এবং গোপনীয়তার প্রকল্পটি গ্রহণ করছেন

টার্ম ইন্সুরেন্স এক প্রকার জীবন বীমা যা আপনার মৃত্যু, রোগ ব্যাধি বা শারীরিক অক্ষমতায় পরিবারকে আর্থিক সুরক্ষা প্রদান করে। বাজারে নানান ধরনের লগ্নির অপশনের মধ্যে এটি একটি অন্যতম যা আপনাকে খুবই কম প্রিমিয়ামের পরিবর্তে অনেক বেশি অর্থের বীমা পেতে সাহায্য করে।

মেয়াদী বীমায় লগ্নি করা গুরুত্বপূর্ণ কেন?

বর্তমানে দুর্ঘটনা ও রোগ ব্যাধির হার দিন দিন বেড়েই চলেছে, আর তার সাথে সাথে আপনার দীর্ঘদিন বেঁচে থাকার সম্ভাবনাও কমে যাচ্ছে। এর অর্থ, আপনি যদি মারা যান, আপনার পরিবারের উপর আর্থিক দিক দিয়ে তার আঁচ যেন এসে না পড়ে। অর্থাৎ আপনার পরিবারের সদস্যদের চাহিদা পূরণের জন্য অবশ্যই যথাযথ আর্থিক সক্ষমতা থাকা প্রয়োজন। এর জন্য শিল্প বিশেষজ্ঞদের মতে আপনার একটি স্বাস্থ্য বীমার উপস্থিতি থাকা খুবই জরুরি এবং তা কম বয়স থেকেই। মেয়াদী বীমা আপনার পরিবারের সদস্যদের একটি স্থায়ী ও সুস্থির জীবন যাপন করতে সাহায্য করবে এমনকি আপনার মৃত্যুর পরও। এটি আপনার পরিবারকে যথেষ্ট পরিমাণ আর্থিক সমর্থন প্রদানে সাহায্য করবে যার মাধ্যমে তাঁরা নিত্য দৈনন্দিন খরচ এবং দীর্ঘ মেয়াদী উদ্দেশ্য পূরণে সাহায্য করবে।

ভারতের সর্বশ্রেষ্ঠ মেয়াদী বীমার পরিকল্পনা

ক্রমিক নং

সংস্থার নাম

মেয়াদী বীমার পরিকল্পনা

পলিসির মেয়াদ (বছর)

অন্তর্ভুক্তি (বছর)

ন্যূনতম সুনিশ্চিত অঙ্ক (টাকা)

দাবির নিষ্পত্তির অনুপাত 2018-19*

1

আইসিআইসিআই প্রুডেন্সিয়াল

আইসিআইসিআই আই প্রটেক্ট স্মার্ট টার্ম প্ল্যান

18-65

85,99

50 লাখ

98.58%

2

ম্যাক্স লাইফ

ম্যাক্স লাইফ অনলাইন টার্ম প্ল্যান প্লাস

18-60

85

25 লাখ

98.74%

3

এইচডিএফসি লাইফ

এইচডিএফসি ক্লিক 2 প্রটেক্ট 3ডি প্লাস টার্ম প্ল্যান

18,25-65

75,85, সারা জীবন

10 লাখ

99.04%

4

এলআইসি

এলআইসি টেক টার্ম

18-65

80

50 লাখ

97.79%

*আমরা এমনকি 2020 সালে ভারতবর্ষের 6টি মেয়াদী বীমার পরিকল্পনার একটি তালিকা প্রস্তুতি করেছি।

মেয়াদী বীমার প্রকারভেদ কি কি?

লেভেল টার্ম প্ল্যান

এটি সবথেকে সরল একটি পরিকল্পনা। এখানে (পলিসির মাধ্যমে) আপনার সুনিশ্চিত অর্থের কোনো পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন না এবং বিমাকৃত ব্যক্তির মৃত্যুর পর তাঁর নমিনি সুবিধা ভোগ করবেন।

ট্রপ(টার্ম রিটার্ন অফ প্রিমিয়াম)

ট্রপ পরিকল্পনাটি আপনার জন্য খুবই লাভদায়ক হবে কারণ এটি মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পর নিশ্চিতরূপে লাভ প্রদান করে। যদি পলিসির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও বিমাকৃত ব্যক্তিটি জীবিত থাকেন তো এই পলিসিটি সব থেকে লাভজনক হবে।

টার্ম ইন্সুরেন্স প্ল্যান বৃদ্ধি পাওয়া

এখানে প্রিমিয়াম এবং অন্তর্ভুক্তি প্রতি বছর বৃদ্ধি পায়। এই পরিকল্পনাটি মূল্যবৃদ্ধির কথা মাথায় রেখে চালু করা হয়েছে। এটির মাধ্যমে আপনার বিমাকৃত অর্থটি প্রায় 1.5-2 গুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যেতে পারে। 

টার্ম ইন্সুরেন্স প্ল্যান হ্রাস পাওয়া

একটি হ্রাস পাওয়া পরিকল্পনায়, বীমার প্রিমিয়াম ও সুরক্ষিত অর্থ দুই হ্রাস পায়। এই ধরনের পরিকল্পনাগুলি মূলত ঋণ পুনরুদ্ধারের জন্য ব্যাঙ্কের দ্বারা জারি করা হয়। সুদের পরিমাণ হ্রাসের সাথে সাথে, ঋণ না পরিশোধ করার ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায়।

রূপান্তরকারী মেয়াদী বীমার পরিকল্পনা

রূপান্তরকারী পরিকল্পনা আপনার বর্তমান মেয়াদী বীমার পরিকল্পনায় অনেক কিছু অতিরিক্ত সুযোগ সুবিধা যোগ করতে সাহায্য করবে। আপনি যে কোনো পরিকল্পনা নির্বাচন করতে পারেন যে আপনার জন্য মানানসই। এটি বাজারের সাথে সংযুক্ত পরিকল্পনাও হতে পারে। এটি আপনার রিটার্ন এর সাথে জীবনের নিরাপত্তা দুই এর সুযোগই প্রদান করে।

মেয়াদী বীমার অধীনে আর কি কি রাইডারের সুবিধা আছে?

আপনি যদি কিছু অতিরিক্ত প্রিমিয়াম খরচ করেন তবে মেয়াদী বীমায় বেশ কিছু অতিরিক্ত সুবিধা পাবেন যেমন প্রিমিয়ামের ছাড়, দুর্ঘটনাজনিত কারণে মৃত্যুর অন্তর্ভুক্তি ইত্যাদি। এইরকম বেশ কিছু সুবিধার বর্ণনা নীচে দেওয়া হলো-(Premium waiver) Rider

জটিল অসুস্থতা রাইডার

রুগীরা যে সমস্ত আপদকালীন রোগ বহন করে চলেন সেগুলি মারণ রোগও হতে পারে। আপনি যদি এই সমস্ত রোগের কবলে পড়েন তো যে কোনো সময়ই এটি ক্রয় করতে পারেন। তবে সেইসবক্ষেত্রে অতিরিক্ত খরচ বা বর্ধিত প্রিমিয়ামের মূল্য বহন করতে হতে পারে। তাই ক্রয় করার পূর্বে, সেই দিকটি ভালো করে খেয়াল রাখবেন।

জটিল রোগের ক্ষেত্রে রাইডারের সুবিধা:

  • 100 টিরও বেশি মারণ রোগের অন্তর্ভুক্তি।
  • হাপাতালের সম্পুর্ন রোগের খরচের অন্তর্ভুক্তি।

চিরস্থায়ী অক্ষমতা রাইডার

কোনো দুর্ঘটনা বা রোগ ব্যধির কারণে শারীরিক অক্ষমতা হওয়াটা খুবই সাধারণ ঘটনা। এই পরিকল্পনা অনুযায়ী পলিসির গ্রাহক যদি শারীরিক অক্ষম হয়ে যান তাহলে তিনি বীমার একটি নির্দিষ্ট অঙ্ক প্রাপ্ত করার সুবিধা পাবেন। তিনি কেবলমাত্র বীমার অন্তর্ভুক্ত সম্পুর্ন অঙ্ক প্রাপ্ত করবেন তা নয় বরং তাঁর ভবিষ্যতের সমস্ত প্রিমিয়ামগুলির ছাড় দেওয়া হবে।

চিরস্থায়ী অক্ষমতার গ্রাহকের সুবিধাগুলি:

  • ভবিষ্যতের সব প্রিমিয়াম দেওয়া থেকে ছাড় পাওয়া।
  • বীমার 100% অঙ্ক প্রাপ্ত।

দুর্ঘটনায় মৃত্যু রাইডার

যদি এই পরিকল্পনাটি গ্রহণ করেন, তাহলে দুর্ঘটনার কারণে মৃত্যুও এর অন্তর্ভুক্ত থাকবে। এটি অন্য যে কোনো বীমার পরিকল্পনার সাথে সংযুক্ত করা যাবে।

গ্রাহকের দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলে যে রাইডারগুলি লাভ করা যাবে:

  • ভবিষ্যতের সমস্ত প্রিমিয়াম দেওয়া থেকে ছাড় পাওয়া।
  • কিছু কিছু বীমার পলিসি এগুলিকে সহজাত বৈশিষ্ট্য হিসাবে গণ্য করে।

নগদহীন চিকিৎসার ক্ষেত্রে রাইডার

এখানে সর্বদা যে কোনো রোগেরই নগদহীন চিকিৎসার সুবিধা প্রদান করা হয়।

নগদহীন চিকিৎসার গ্রাহকের জন্য রাইডার:

  • নগদহীন চিকিৎসা পাওয়া যায় এমন হাসপাতালের নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত হওয়া।
  • স্বল্প বিনিয়োগের দ্বারা বিশাল সুবিধা লাভ করা।

প্রিমিয়াম ওয়েভার রাইডার

এই পরিকল্পনা অনুযায়ী, ভবিষ্যতের সমস্ত প্রিমিয়াম দেওয়া থেকে মুক্তি লাভ করতে পারবেন। আপনি যদি ভবিষ্যতে প্রিমিয়াম পরিশোধ করা থেকে বিরত থাকতে চান, তাহলে এটি আপনার জন্য বিশেষ উপযুক্ত।(Change)

প্রিমিয়াম ছাড় গ্রাহকের সুবিধাগুলি:

  • আপনি যে সময় থেকে আর প্রিমিয়াম পরিশোধ করতে চান না তা নির্বাচন করতে পারেন।(Change)
  • বীমার অঙ্কের উপর কোনো প্রভাব পড়বে না।

মেয়াদী বীমার প্রধান বৈশিষ্ট্য ও সুবিধাগুলি কি কি?

আজীবনকাল অন্তর্ভুক্তি

বেশিরভাগ বীমা সংস্থা আপনাকে 75 বছর বয়স পর্যন্তই বীমায় অন্তর্ভুক্তি করবে (কারণ এটিই হলো একজন সাধারন মানুষের গড় আয়ু)। তবে বেশ কিছু জীবন বীমা সংস্থা আছে যারা 100 বছরের জন্যও বীমার আওতায় অন্তর্ভুক্ত করে। তাহলে, আপনি যদি কম বয়স থাকতেই মেয়াদী পরিকল্পনা ক্রয় করেন, আপনি ও আপনার পরিবার সুদীর্ঘ সময়ের জন্য এর লাভ তুলতে পারেন।

ফ্রি লুক আপ পিরিয়ড

বর্তমানে আপনি হয়তো পলিসি সম্পর্কে নিশ্চিত নন। তাড়াহুড়ো করে মেয়াদী বীমা ক্রয় করতে গিয়ে তা ঘটে থাকতে পারে। ফলস্বরূপ, অনেক মানুষই ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন। আপনার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য, সমস্ত বীমা সংস্থা 15 থেকে 30 দিন ছাড় দেয়। আপনি যদি পলিসি সম্পর্কে অসন্তুষ্ট হন, তাহলে পলিসিটি বাতিল করতে (এই সময়ের মধ্যে) আপনি পলিসির আসল নথি ফিরিয়ে দিতে পারেন।

পেমেন্টের সুবিধা

সব থেকে সুবিধার বিষয়টি হলো, আপনি নিজের পছন্দমতো ও সুবিধামতো সময় ও মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারেন। আপনি মাসিক, ত্রৈমাসিক, সান্মাসিক অথবা বার্ষিক পেমেন্ট করতে পারেন। বহু মানুষই মাসে মাসে বীমার কিস্তি দিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, কারণ এতে টাকার অঙ্কটা অনেকটা কমে যায়। অনলাইনে খুব সহজেই পেমেন্ট করা সম্ভব। আপনি NEFT, নেট ব্যাঙ্কিং, IMPS, অথবা ওয়ালেট ব্যাঙ্কিং এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারেন।

কর ছাড়

হ্যাঁ, এটি মেয়াদী বীমার পরিকল্পনায় বিনিয়োগের অপর একটি সুবিধা। একটি মেয়াদী বীমা পলিসি ক্রয় করার ফলে, আপনি আয়কর আইন 1961, 80c অধ্যায়ের আওতায় কর ছাড়ের সুবিধা পাবেন।

স্বল্প বিনিয়োগে সর্বাধিক লাভ

মেয়াদী বীমা পরিকল্পনাটি খুবই কম অঙ্কে লাভ করা সম্ভব। এটি মাসে কয়েকশো বা হাজার টাকা বিনিয়োগ করেই লাভ করা সম্ভব। এর পরিবর্তে আপনি কয়েক লাখ বা কোটি টাকার বীমা পেয়ে যাবেন (পলিসির অপশনের রদ বদলের উপর নির্ভর করে)। (was wrong spelling. Now corrected)

ক্রয়ের নমনীয়তা

আপনি দুটি চ্যানেলের থেকে মেয়াদী বীমার পরিকল্পনা ক্রয় করতে পারেন - উভয় অফলাইন ও অনলাইন। আপনি যে সংস্থার পলিসি কিনছেন তার দফতরে সশরীরে উপস্থিত হতে পারেন অথবা অনলাইনে সব থেকে কার্যকরী চ্যানেল - PolicyX.com এর মাধ্যমেও ক্রয় করতে পারেন। আমরা আপনার চাহিদা অনুযায়ী আপনাকে রদ বদল সম্ভবপর পোর্টফোলিও প্রদান করবো। আমাদের কাছে একটি উৎসর্গীকৃত দল আছে যারা আপনার সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম। ডকুমেন্ট তৈরি থেকে অপর যেকোনো সাহায্য প্রদান, তারা সর্বদা প্রস্তুত সব থেকে সেরা উপায়ে আপনাকে সাহায্য করতে।

আপনি কেন মেয়াদী বীমা অনলাইনে ক্রয় করবেন?

দ্রুত ডেলিভারি: যখনই আপনি প্রয়োজনীয় তথ্য ভরে পেমেন্ট করবেন, তক্ষনি আপনি পলিসির নথি আপনার ইনবক্সে পেয়ে যাবেন।

অনলাইনে উপলব্ধতা: বীমার কাগজ হাতে পাওয়ার জন্য আগেকার দিনের মতো আপনাকে বীমা সংস্থার এজেন্টের মুখাপেক্ষী হয়ে দিনের পর দিন অপেক্ষা করে থাকতে হবে না। এই ডিজিটাল আধুনিকতার যুগে, একটি ক্লিকের মাধ্যমেই আপনি আপনার সমস্ত কাগজ ও নথিপত্র ব্যবহার করতে পারবেন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি PolicyX.com থেকে মেয়াদী বীমার প্ল্যান করত করেন , আপনি নিজের একাউন্টে লগ ইন করে খুব সহজেই নিজের বীমার সমস্ত বিবরণ দেখতে পারেন।

স্বয়ংক্রিয় ফলাফল: আপনার পলিসির বিবরণ সম্পর্কে জানতে আপনাকে ইন্টারনেট এর পন্ডিত হতে হবে না, বা সারাক্ষন ইন্টারনেটে বুঁদ হয়ে পরে থাকতে হবে না। একটি ওয়েব পেজ এই আপনি বিভিন্ন বীমা প্রদানকারী সংস্থার বিবরণ থেকে একটি বীমার জন্য আপনাকে কতটা প্রিমিয়াম দিতে হবে তার হিসাব ইত্যাদি সব কিছুই জেনে যাবেন।

কম প্রিমিয়াম: এই বীমার সব থেকে সুবিধার ব্যাপারটি হলো এখানে কোনো তৃতীয় পক্ষের উপস্থিতি নেই। অর্থাৎ সমগ্র পক্রিয়াটিতে, অনলাইনে মেয়াদী বীমার পরিকল্পনার খরচ কম। অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচ যেমন অফিসের ভাড়া, এজেন্ট ও সরবারহকারী চ্যানেলের খরচ ইত্যাদির থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

স্মরণে রাখা: আজকাল ব্যস্ততার যুগে সকলের পক্ষে সবকিছু মনে রাখা সম্ভবপর না। তাই আমাদের কাছে 'reminder system' এর সুবিধা আছে। আপনি যদি PolicyX.com এর ক্রেতা হন, আপনি নিয়মিত ভাবে আমাদের থেকে রিমাইন্ডার পাবেন যাতে আপনার মেয়াদী বীমার পলিসি নবিকরন করতে পারেন ও তা নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে পারেন।

মেয়াদী বীমা ক্রয় করার জন্য কি কি কাগজপত্র লাগবে?

  • শেষ 3 মাসের স্যালারি স্লিপ বা শেষ 3 বছরের আয়কর রিটার্ন।
  • বেতনভোগী কর্মচারীদের জন্য ফর্ম 16 এবং স্ব-রোজগারি বা ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ফর্ম 16A।
  • একটি পাসপোর্ট সাইজের ফটো
  • পরিচয়পত্র যেমন আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি।

টার্ম ইন্সুরেন্সয় কোনটি অন্তর্ভুক্ত নয়?

বাজারের অন্যান্য সব কিছুর মতোই, মেয়াদী বীমাও (*) সাথে উপলব্ধ হয়। চলুন দেখে নেওয়া যাক।

নিম্নলিখিত কারনের জন্য মৃত্যু হলে তা বীমার অন্তর্গত নয়-

  • ড্রাগ/মদ সেবনের ফলে
  • পূর্ব-উপস্থিত কোনো রোগের কারণে
  • অন্তঃসত্বা/শিশুর জন্মের ফলে কোনো জটিলতার কারণে
  • বেআইনি কার্যকলাপের ফলে
  • আত্মহত্যা (বীমার পলিসি করার 1 বছরের মধ্যে)
  • যুদ্ধ বা কোনো ক্ষয়ক্ষতিজনিত কার্যকলাপের ফলে

আপনার জন্য কত অঙ্কের মেয়াদী বীমার প্রয়োজন?

আপনি যখন মনস্থির করে ফেলেছেন যে মেয়াদী বীমা ক্রয় করবেন তারপর আপনার মাথায় যে প্রশ্নটি আসা স্বাভাবিক তা হলো কত অঙ্কের বীমা আপনার জন্য যথেষ্ট হবে? আমরা এই বিষয়ে যদি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নি, তাহলে একটি মেয়াদের অঙ্ক সর্বদা আপনার বার্ষিক আয়ের 15-20 গুন হওয়া উচিত। উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনার বার্ষিক যায় 5 লক্ষ টাকা হয় তাহলে আপনার বীমার নুন্যতম অঙ্ক 75 লক্ষ টাকা থেকে 1 কোটি টাকা হওয়া উচিত।

বীমার ক্ষেত্রে কিভাবে দাবি আদায়ে সফল হবেন?

পলিসির গ্রাহকের মৃত্যু হলে, নমিনিকে সেই ব্যাপারটি বীমা সংস্থাকে জানাতে হবে এবং প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র তাদের সাথে শেয়ার করবেন। ভিন্ন ক্ষেত্রে ভিন্ন কাগজপত্র প্রয়োজন। এই পরিস্থিতির বিচারে, নানান কেস নিচে তুলে ধরা হলো-

কেস 1 : স্বাভাবিক মৃত্যু

  • পলিসির আসল কাগজ পত্র।
  • বীমা সংস্থার দ্বারা জারি করা দাবির ফর্ম।
  • আসল দাবিদারের থেকে এপ্লিক্যাশন।
  • এগুলি ছাড়াও বীমা সংস্থার দরকারি কাগজ পত্র।

কেস 2: দুর্ঘটনায় মৃত্যু

  • দুর্ঘটনার ময়নাতদন্তর রিপোর্ট।
  • পুলিশের এফআইআর রিপোর্ট।
  • পুলিশের থেকে তদন্তের রিপোর্ট।
  • উপস্থিত ডাক্তার এর পর্যবেক্ষণের বিবৃতি বা সার্টিফিকেট।

কেস 3: অসুস্থতার কারণে মৃত্যু

  • হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার কাগজ।
  • সমর্থনযোগ্য চিকিৎসাগত রিপোর্ট।
  • বীমার সংস্থার দ্বারা জারি করা দাবি।
  • দাবিদারের থেকে আবেদনপত্র।
  • এগুলি ছাড়াও বীমা সংস্থার দরকারি কাগজ পত্র।

কেস 4: অন্য কোনো কারণে মৃত্যু

  • কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে মৃত্যু হলে তার প্রমান - মৃত্যুর তালিকায় তাঁর নাম প্রমান হিসাবে অবশ্যই থাকতে হবে।
  • বীমা সংস্থার জারি করা দাবির কাগজ।
  • দাবিদারের থেকে পূর্ণ আবেদনপত্র।

কেস 5: বিমাকারীর সাথে সাথে নমিনিও যদি মারা যান

এই সমস্ত কেসে, দাবিদারের আইনি উত্তরাধিকারী সুবিধাভোগী হবেন। তিনি কেবলমাত্র 18 বছর পূর্ণ করার পরই এই সুবিধাটি ভোগ করতে পারবেন। কিন্তু তাঁর অভিভাবককে অবশ্যই সেই ব্যাপারে তক্ষনাৎ বীমা সংস্থাকে জানাতে হবে। এটিও সম্ভবপর হতে পারে যে বীমার টাকাটি ট্রান্সফার করা হলো এবং তাঁর সাবালক হয়ে ওঠা পর্যন্ত তা লক করে রাখা থাকবে। যদিও, বয়সের যে নিয়ম তা ভিন্ন বীমা সংস্থা অথবা IRDA উপর নির্ভর করতে পারে।

কেস 6: যদি পলিসির গ্রাহকের পূর্বেই নমিনি মারা যান

যখন কোনো পলিসির গ্রাহকের পূর্বেই নমিনি মারা যান, তাহলে অপর একজন সুবিধাভোগীর নাম মনোনয়ন করাটা বিমাকারীর দায়ভার। যদি আপনি কোন পরিকল্পনা গ্রহণ করে থাকেন ও আপনার সুবিধাভোগী মারা যান, তাহলেও জোট শীঘ্র সম্ভব আপনাকে বিবরণ পরিবর্তন করতে হবে। এটি অনলাইনে অথবা কাস্টমার কেয়ার জানানোর মাধ্যমে করা সম্ভব।

দ্রষ্টব্যঃ: যদি বীমা প্রদানকারী একবার দাবির ব্যাপারটি গ্রহণ করে, তাহলে তা নমিনি/দাবিদারকে বীমার অঙ্ক পরিশোধ করবে।